খেলাধুলা

ধূমপান করে ক্ষমা চাইলেন ম্যারাডোনা

খেলাধুলা ডেস্ক : শনিবার লিওনেল মেসিদের প্রথম ম্যাচটি দেখতে স্পার্তাকের গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা। ম্যাচ চলাকালীন গ্যালারিতে তাকে ধূমপান করতে দেখা যায়। আর তা নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। পরে অবশ্য এর জন্য ক্ষমা চেয়ে তিনি জানিয়েছে, স্টেডিয়ামে যে ধূমপান নিষিদ্ধ, তা তিনি জানতেন না।

এদিন দারুণ আধিপত্য নিয়ে খেলেও ১-১ গোলের ড্র নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় আর্জেন্টিনাকে। মূলত আইসল্যান্ডের জমাট রক্ষণের সামনে এসে মুখ থুবড়ে পড়ছিল মেসিদের সমস্ত আক্রমণ। এদিন ম্যাচের ১৯ মিনিটে সার্জিও আগুয়েরোর গোলে ১-০ তে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু পিছিয়ে পড়ার ৪ মিনিটের মধ্যেই সেটি শোধ করে ১-১ গোলে সমতায় ফেরে আইসল্যান্ড।

bartabahok

এরপরই শুরু হয় আর্জেন্টিনার হতাশার সময়। একের পর এক আক্রমণ করেও আইসল্যান্ডের জালে বল পাঠাতে পারছিল না মেসিরা। আর তাতেই টেনশন বাড়ছিল আর্জেন্টাইন সমর্থকদের। সেই টেনশন সংক্রমিত হয় গ্যালারিতে বসে থাকা ‘ফুটবল ঈশ্বর’ ম্যারাডোনার মধ্যেও। ফলে সিগারে আগুণ ধরান তিনি। ফুটবলের ইতিহাসের সেরা এই তারকার ধূমপানের এই দৃশ্য দেখেছে বিশ্ব। তাতে ওঠে সমালোচনা ঝড়।

পরে অবশ্য এই ঘটনার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি। নিজের ফেসবুক পেইজে ৫৭ বছর বয়সী ম্যারাডোনা লিখেছেন, ‘শনিবার আর্জেন্টিনার জন্য কঠিন দিন ছিল। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে প্রচুর টেনশন হচ্ছিল। সবাই তা অনুভব করতে পেরেছে। সত্যি বলতে, আমি জানতাম না যে স্টেডিয়ামে ধূমপান করা যায় না। আমি আয়োজকসহ সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আসুন, আমাদের দলকে আরো বেশি সমর্থন দিই।’

ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ম্যারাডোনা। ১৯৮৬ সালে একক প্রচেষ্টায় দলকে বিশ্বকাপ জেতান তিনি। এরপর ২০১০ সালে আর্জেন্টিনা দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন ম্যারাডোনা।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close