সারাদেশ

‘বিষাক্ত ব্যাটারী তৈরীর কারখানা’ বন্ধের দাবীতে শ্রীপুরে অবরোধ ও ঘেরাও কর্মসূচি পালন

বার্তাবাহক ডেস্ক : গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার কেওয়া পূর্বখন্ডে অবস্থিত বিষাক্ত ব্যাটারী তৈরীর কারখানা ‘গ্যালি ইন্ডাস্ট্রিয়াল কোম্পানি লিমিটেড’ বন্ধের দাবীতে অবরোধ ও ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী ও কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।

বুধবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে কারখানার সামনে এ অবরোধ ও ঘেরাও কর্মসূচি পালন করা হয়।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এতে অংশ গ্রহণ করেন এলাকার সাধারণ মানুষসহ বিভিন্ন সাংগঠনের কর্তব্যব্যক্তিরা। এ সময় তারা কারখানাটি বন্ধের দাবী জানিয়ে বক্তব্য প্রদানসহ প্রশাসনের ব্যাপক সমালোচনা করেন।

এর আগেও কারখানাটি বন্ধের দাবীতে দু’বার মানববন্ধন করেছিল এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানায়, কারখানায় সীসা গলিয়ে ব্যাটারী বানানো হয়। এ্যাসিড ব্যবহার সহ নানা ধরণের ক্যামিকেল ব্যবহারের ফলে আশেপাশের পুরো এলাকার পরিবেশের মারাত্মক বিপর্যয় ঘটেছে। নির্গত বিষাক্ত কালো ধোয়ায় এলাকায় বসবাসকারী বিশেষ করে শিশুরা শ্বাসকষ্টসহ ফুসফুসের নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। গবাদি পশু সমানে মরছে। দীর্ঘ একমাস যাবৎ বিষাক্ত এ কারখানাটি বন্ধের দাবী জানিয়ে আসছে তারা। এর আগেও আরো দু’বার মানববন্ধন করেছে কিন্তু কারখানাটি বন্ধের কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি প্রশাসন। তবে গত ৩১ জুলাই উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান আদালত চালিয়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছিলো।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা কারখানাটির জরিমানা আদায়ের বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি। তাদের দাবী কারখানা বন্ধের।

অবরোধ ও ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী কেওয়া পূর্বখন্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী সাওদা আক্তার জানায়, “কারখানার বিষাক্ত ধোয়ায় আমরা নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসতে পারি না। প্রায় সময়ই অসুস্থ হয়ে যাই। কারখানা থেকে নির্গত কালো ধোয়া চোখে মুখে লাগে,খুব শ্বাসকষ্ট হয়। আমরা সুন্দর পরিবেশ চাই,বিশুদ্ধ বাতাসে প্রাণ খোলে নিশ্বাস নিতে চাই”।

এ বিষয়ে কারাখানা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কারো সাড়া পাওয়া যায়নি।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেহেনা আকতার জানান, ওই কারখানার বিরুদ্ধে পরিবেশ দূষণের অভিযোগ থাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে গত ৩১ জুলাই ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ সচেতন না হওয়ায় এলাকাবাসী ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় এনে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় দ্রুত কারখানাটি সিলগালা করার আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close