আলোচিত

নারী ও ধর্ষণ

নারীরা একদিক থেকে এগিয়ে গেলও অন্যদিকে তারা নির্যাতনের শিকার

বার্তাবাহক ডেস্ক : পৃথিবী সৃষ্টি থেকেই নারী ও পুরুষ একসাথে বসবাস করে আসছে। এই পৃথিবীকে সুন্দর করার জন্য পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও অবদান অনেক। নারী ছাড়াও পুরুষ যেমন বাঁচতে পারে না, ঠিক তেমনি পুরুষ ছাড়াও নারীরা বাঁচতে পারে না। বলা যায় দুজনে একে অপরের পরিপূরক।

তাইতো জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বলেছেন,

‘বিশ্বের যা কিছু সৃষ্টি চির কল্যাণকর
অর্ধেক করিয়াছে নারী,আর অর্ধেক নর’

সব ক্ষেত্রে নারী আজ এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে বাংলাদেশে নারীও আর পিছিয়ে নেই। বেশ কয়েক বছর আগে উন্নত বিশ্বের নারীরা সব ক্ষেত্রে এগিয়েছে। এখন বাংলাদেশের নারীরা সব ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। একটা উদাহরণ দিলে বুঝা সহজ হবে বাংলাদেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের দুই নেত্রীও কিন্তু নারী। এ দুজন নারী ছাড়াও জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী তিনিও নারী। তাই বলা যায় নারীরা পুরুষের পাশাপাশি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে কাজ করছে।

কিন্তু নারীরা এদিক থেকে এগিয়ে গেলও অন্যদিকে তারা নির্যাতনের শিকার। বর্তমানে টেলিভিশন ও জাতীয় দৈনিক খবরের কাগজ খুললে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিনিয়ত চোখে পড়ে।

একটি পরিসংখ্যানে বলছে, ‘চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত তিন মাসে বাংলাদেশে ১৮৭ জন নারী ধর্ষণে শিকার হয়েছেন। এদের মধ্যে ধর্ষণের পর ১৯ জন নারীকে হত্যা করা হয়েছে। দুইজন নারী ধর্ষণের পর আত্মহত্যা করেছেন।

এ ছাড়াও ধর্ষনের চেষ্টা চালানো হয়েছে আরও ২১ জন নারী ওপর। মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) ত্রৈমাসিক পরিসংখ্যানে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এসব ধর্ষণের অধিকাংশ কারণ হচ্ছে পুরুষ। পুরুষদের বলছি, আপনাদের ভাবতে হবে নারীরা একাধারে আমাদের মা, বোনও বটে। তাই তাদের ভোগের পণ্য হিসাবে নয়, মানুষ হিসাবে ভাবতে শিখুন। তাহলে দেশ থেকে ধর্ষণ ও নারী সহিংসতার মতো অপরাধ কমে আসবে।

পরিশেষে এটাই বলব, নিজেদের দৃষ্টি ভঙ্গিকে বদলান। জীবন বদলে যাবে। নারী নির্যাতন ও নারী ধর্ষণের বিচার দ্রুত সময়ের মধ্যে করার দাবি জানাই।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close