গাজীপুরসারাদেশ

কালীগঞ্জে নদী থেকে লাশ উদ্ধার: রাব্বিকে মারধর করে নদীতে ফেলে ডুবিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে ২ আসামি

বার্তাবাহক ডেস্ক : কালীগঞ্জে নিখোঁজের এক দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে রাব্বি হাসান(১৯) নামে এক তরুণের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় জানা যাচ্ছে তাকে মারধর করে নদীতে ফেলে দুই আসামি মিলে পানিতে ডুবিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করেছে বলে।

এ ঘটনায় চার জনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। পরে প্রধান আসামি শান্তকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) গাজীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শেখ নাজমুন নাহার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশের করা রিমান্ড আবেদন ও আদালত সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

শুক্রবার ভোর রাতে নরসিংদীর সদর এলাকা থেকে শান্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

নিহত রাব্বি হাসান কালীগঞ্জের তুমুলিয়া ইউনিয়নের টিউরি গ্রামের খোকন মিয়ার ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল সাড়ে আটটার দিকে নিহতের বাবা খোকন মিয়া বাদী হয়ে হত্যা ও লাশ গুমের অভিযোগ এনে ৩০২,২০১ ও ৩৪ ধারায় চার জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো ৫-৬ জনের নামে কালীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন [মামলা নাম্বার ২৩(৭)২১]।

অভিযুক্ত আসামিরা হলো কালীগঞ্জের মধ্যে ভাদার্ত্তী এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে শান্ত (২৩), দক্ষিণ ভাদার্ত্তী এলাকার কাশেম মিয়ার ছেলে ইকবাল(২৬), জামালপুর এলাকার রানা (৩০) এবং বালীগাঁও এলাকার নাদিম (৩০)।

gazipurkontho

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাদিকুর রহমান রিমান্ড আবেদনে উল্লেখ করেন, গত ২৭ জুলাই (মঙ্গলবার) রাত সোয়া দশটার দিকে কালীগঞ্জের তুমুলিয়া ইউনিয়নের বঙ্গবন্ধু বাজারের দক্ষিণ পাশে এনসিজি ইটভাটা সংলগ্ন এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে নোঙ্গর করা এসভি মিথিলা সালমান নামক জাহাজে গ্রেপ্তার শান্তসহ অভিযুক্ত আসামিরা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রাব্বি হাসানসহ তার সঙ্গীদের ঘেরাও করে রাব্বিকে মারধর করে লাথি মেরে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয়। পরে আসামি শান্ত নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নেমে রাব্বিকে ডুবাইতে থাকে এবং অপর আসামি ইকবালও নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নেমে দু’জনে মিলে রাব্বিকে নদীর পানিতে ডুবিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে। পরে রাত সাড়ে এগারোটা দিকে তারা রাব্বিকে পানিতে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ডুবুরি দল নদীতে খোঁজাখুঁজি করেও রাব্বির লাশের সন্ধান পায়নি। এরপর ২৯ জুলাই (বৃহস্পতিবার) ভোর আনুমানিক ৪টার দিকে তুমুলিয়া ইউনিয়নের বড়িহাটি এলাকার বিএমসি লবণ কারখানাল উত্তর পাশে শীতলক্ষ্যা নদীতে ভাসমান অবস্থায় রাব্বির লাশ পাওয়া যায়। গ্রেপ্তার শান্তকে ঘটনার বিষয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে কৌশলে বিষয়টি এড়িয়ে যায়। সময় স্বল্পতার কারণে তাকে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব হয়নি। মামলার সুষ্ঠ তদন্ত ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে মামলার এজাহারনামীয় সহ অজ্ঞাত পলাতক আসামিদের শনাক্ত, অবস্থান নির্ণয়, পূর্ণ নাম-ঠিকানা সংগ্রহ, গ্রেপ্তার ও মামলার ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনে আসামিকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ব্যাপক ও নিবিড় ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা এবং আসামিসহ গ্রেপ্তাতারী ও তল্লাশি অভিযান পরিচালনার জন্য আসামিকে ১০ দিনের রিমান্ড প্রয়োজন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাদিকুর রহমান বলেন, শুক্রবার ভোর রাতে রাব্বি হত্যা মামলার প্রধান আসামি শান্তকে নরসিংদী সদর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামিকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়। পলাতক অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

গাজীপুর কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মো: মনিরুল ইসলাম (পিপিএম) বলেন, আদালতে রিমান্ড শুনানির পর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শেখ নাজমুন নাহার আসামির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

 

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close