আলোচিতগাজীপুরসারাদেশ

দামে কম মানে ভালো কাকলি ফার্নিচার ‘কাকলি ভাইরাস’ হয়ে নেট-দুনিয়ায় ভাইরাল

বার্তাবাহক ডেস্ক : কাকলি ফার্নিচারের একটি বিজ্ঞাপনের ট্যাগ লাইন দেশ ছাড়িয়ে এখন ভারতের নেট-দুনিয়ায়ও ভাইরাল। কেউ কেউ যাকে কাকলি ভাইরাস বলছেন।

নিপাট সাধারণঁ একটি বিজ্ঞাপন। তা নিয়েই মেতে আছে পশ্চিমবঙ্গের নেট-দুনিয়া। মজা করে কেউ কেউ আবার বলছেন, করোনা অতিমারির আবহে, পশ্চিমবঙ্গের নেট-দুনিয়ায় ‘কাকলি ভাইরাস’ থাবা বসিয়েছে।

কী এই কাকলি ভাইরাস? একটি বিপণি বিতানের নামের বিজ্ঞাপন আলোচনার কেন্দ্রে। কাকলি ফার্নিচার নামে সেই বিপণি বিতানের বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপন বাজারে ছেড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, কখনো দুইটি ছোট মেয়ে শিশু যন্ত্র মানবের/রোবটের ভঙ্গিতে আসবাবের ওপর লাফাচ্ছে আর বলে চলেছে, ‘দামে কম মানে ভালো…কাকলি ফার্নিচার’। স্বামীঁ-স্ত্রীর সংলাপেও বিজ্ঞাপন আছে। সেখানেও বার বার বলা হচ্ছে, ‘দামে কম মানে ভালো…কাকলি ফার্নিচার’।

বলতে গেলে বাংলাদেশে একটি নেহায়েতই অল্প-পরিচিত আসবাবপত্র বিপণির নাম ‘কাকলী ফার্নিচার’। কিন্তু ফেসবুকে সাদামাটা অথচ নজরকাড়া এক বিজ্ঞাপনের সুবাদে রাতারাতি সীমান্তের অন্য পাড়ে তারা রীতিমতো আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। সবার মুখে মুখে ঘুরছে এই ব্র্যান্ডটির নাম।

এ নিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমসহ কলকাতার একাধিক সংবাদ মাধ্যম সংবাদ প্রচার করছে।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম ডয়চে ভেলে শিরোনাম করেছে, ‘দামে কম মানে ভালো কাকলি ভাইরাস’।

কলকাতার আনন্দবাজার অনলাইনের শিরোনাম ‘Kakoli Furnitures: মিস্টার বিন থেকে কাকলি ঘোষ দস্তিদার, সবাই ভুগছেন ‘কাকলি’ ভাইরাসে‘।

হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার শিরোনাম ‘দামে কম, মানে ভালো’, kakoli Furniture নিয়ে ইনস্টায় রিল ভিডিয়ো বানালেন ঋতাভরী! 

নিউজ ১৮ বাংলা শিরোনাম করেছে, ‘ভাইরাস কাকলীতে আক্রান্ত সানি লিওন থেকে রণবীর সিং ! মিমের ঝড়ে কাবু করোনাও‘।

নিউজ বাংলা ২৪-এর শিরোনাম ‘দুই বাংলায় আলোচনা একটাই ‘কাকলী ফার্নিচার’

সংবাদ প্রতিদিনের শিরোনাম ‘দামে কম, মানে…’, নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হওয়া ‘কাকলী ফার্নিচারের’ আসল রহস্য জানেন?

জি ২৪ ঘন্টা শিরোনাম করেছে, ‘দামে কম মানে ভালো…’, করোনা-নারদ ছাপিয়ে ফেসবুক অস্থির ‘কাকলী ফার্ণিচারে’!

কাকলী ফার্নিচারের শোরুম গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মাওনা চৌরাস্তায় এলাকায় অবস্থিত। এর স্বত্বাধিকারী এস এম সোহেল রানা।

আপাত নিরীহ এক বিজ্ঞাপনই এখন বাংলাদেশ ছাড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গের নেট-দুনিয়া দখল করে রেখেছে। তৈরি হয়েছে অসংখ্য মিম। একে অন্যের ছবির নীচে গিয়েও কমেন্ট করে আসছে, ‘দামে কম মানে ভালো…’।

মিমগুলি অবশ্য অধিকাংশই স্যাটায়ারধর্মী। নারদ মামলায় আটক কলকাতার সাবেক মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। তার ব্যক্তিগত জীবনও বার বার সংবাদের শিরোনামে এসেছে এবং আসছে। স্ত্রী রত্নাকে ছেড়ে তিনি এখন বান্ধবী বৈশাখীর সঙ্গে থাকেন। ‘দামে কম মানে ভালো…’ ক্যাপশনে মিম তৈরি করে রত্না-শোভন-বৈশাখীর সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হচ্ছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কে। আবার তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদারকে নিয়েও তৈরি হয়েছে ‘দামে কম মানে ভালো…’ মিম। একাধিক টেলিভিশন এবং সিনেমার অভিনেতাদের মুখ ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে মিম।

পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি ইদানীং নানা ঘটনায় মিম তৈরি করে সোশ্যাল নেটওয়ার্কে ছেড়ে দেয়। এটাই এখানকার ট্রেন্ড বলা যেতে পারে। কিছুদিন আগে এভাবেই জনপ্রিয় হয়েছিল বাংলাদেশের আরেক জনপ্রিয় সংলাপ ‘খেলা হবে’। তৃণমূল কংগ্রেস নির্বাচনে সেই ‘খেলা হবে’ সংলাপ স্লোগান বানিয়ে ফেলেছিল। এবার বাজারে হিট কাকলি ফার্নিচার। থুড়ি, কাকলি ভাইরাস।

সোশ্যাল নেটওয়ার্কে অবশ্য কাকলি বিরোধী মঞ্চও গড়ে উঠেছে। কেউ এর মধ্যে শ্রেণিবিদ্বেষ দেখতে পাচ্ছেন। কেউ আবার মনে করছেন, অতিমারির সময়ে যখন সোশ্যাল নেটওয়ার্কে রক্ত, অক্সিজেনের প্রয়োজনীয় তথ্য দেওয়া হচ্ছে, তখন কাকলি ভাইরাস সে সব পোস্ট ট্রেন্ডিংয়ে নীচে নামিয়ে দিচ্ছে। তবে মনোবিদদের কেউ কেউ বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে মানুষ আতঙ্কে আছে। অতিমারির ভয়াবহ খবর দিকে দিকে ঘুরছে। সেই সময়ে একটু হাল্কা চটুল কিছু নিয়ে আলোচনা করে ভারাক্লান্ত মন যদি একটু হাল্কা হয়, ক্ষতি কী?

 

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close