লাইফস্টাইল

ব্রেকআপের পরেও কি বন্ধুত্ব বজায় রাখা উচিৎ?

লাইফস্টাইল ডেস্ক : এই একটি প্রশ্নে বিভিন্ন মানুষের বিভিন্ন মত। কেউ বলেন প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার সাথে বন্ধুত্ব বজায় রাখাই ভালো। কেউ বা আবার এর ঘোর বিরোধী। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের কী মত?

নিউ ইয়র্কের সাইকোথেরাপিস্ট এবং ‘দ্যা ব্রেকআপ বাইবেল’ বইয়ের লেখক র‍্যাচেল সাসম্যান উপদেশ দেন, ব্রেকআপের পর বন্ধুত্ব বজায় রাখতে গেলে সতর্ক থাকাই ভালো। তবে কারো কারো ক্ষেত্রে বন্ধুত্ব টিকিয়ে রাখাটা উপকারে আসতে পারে। ব্রেকআপের পর প্রাক্তন প্রেমিক বা প্রেমিকার সাথে বন্ধুত্ব বজায় রাখা ঠিক হবে কিনা, তা বুঝতে মাথায় রাখুন তিনটি বিষয়ে-

১) কখন যোগাযোগ বন্ধ করে দেবেন

এটা নিশ্চিত করেই বলা যায় যে, শারীরিক বা মানসিক অত্যাচার করে, এর মাধ্যমে আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় বা আপনার জীবনকে বিষিয়ে তোলে এমন প্রেমিক বা প্রেমিকার সাথে ব্রেকআপের পর তার সাথে যোগাযোগ রাখাই যাবে না, বন্ধুত্ব তো দূরের কথা। কিন্তু দুজনের মাঝে সম্পর্ক সুস্থ ও সুন্দর থাকলেও ব্রেকআপের পর বন্ধুত্বে যাবার আগে ভাবা প্রয়োজন। ২০০০ সালের এক গবেষণায় দেখা যায়, প্রাক্তনের সাথে বন্ধুত্ব নেতিবাচক দিকেই যায় বেশিরভাগ সময়ে।

কী করে বুঝবেন প্রাক্তনের সাথে বন্ধুত্ব ভালো হবে কী হবে না? এখানে সহজ একটি সুত্র রয়েছে। সম্পর্কে জড়ানোর আগেই কি আপনাদের বন্ধুত্ব ছিল? আগে যদি বন্ধুত্ব না থাকে তাহলে ভাঙনের পর বন্ধুত্ব গড়ে ওঠার সম্ভাবনা কম।

প্রাক্তনের সাথে বন্ধুত্বের কিছু খারাপ দিকও আছে। অনেক সময়ে তার সাথে বন্ধুত্বের কারণে আপনি নতুন সম্পর্কে জড়াতে দ্বিধা করবেন। অথবা নতুন সম্পর্কে জড়ালেও সেখানে সমস্যা করবে। অনেকেই চান না তার প্রেমিক বা প্রেমিকা তার প্রাক্তনের সাথে সম্পর্ক রাখুক। ফলে সম্পর্কে তিক্ততা তৈরি হয়।

২) কখন বন্ধুত্বে অগ্রসর হবেন

বিবাহিত এবং সন্তান রয়েছে এমন দম্পতির মাঝে বিচ্ছেদের পর তাদের মাঝে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠা ভালো। সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা ভেবেই তাদের বন্ধুত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করা উচিৎ।

এছাড়া অনেক জুটি আছেন যারা কম বয়স থেকেই একে অপরকে চেনে, তাদের মাঝে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে এবং বন্ধুত্বের পর প্রেম আসে। এমন ক্ষেত্রে ব্রেকআপের পর বন্ধুত্ব বজাইয় রাখাটা আসলে খারাপ নয় এবং এতে তেমন কোনো সমস্যার সম্ভাবনা নেই। অবশ্যই আপনার বর্তমান প্রেমিক বা প্রেমিকা প্রাক্তনের প্রতি ঈর্ষাকাতর কিনা, এ ব্যাপারে খেয়াল রাখুন।

৩) নিষ্কণ্টক বন্ধুত্ব বজায় রাখবেন কীভাবে

প্রাক্তনের সাথে বন্ধুত্বের পদক্ষেপ নেবার আগে কিছু সময় (অন্তত কয়েক মাস) যোগাযোগ বন্ধ রাখুন। কিছুটা সময় আলাদা কাটানোর পরেই আপনি বুঝতে পারবেন আসলে বন্ধুত্ব টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে। এ সময়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তার থেকে দূরে থাকুন। তাকে আনফ্রেন্ড এবং আনফলো করে রাখুন।

এছাড়া কিছু সীমানাও নির্ধারণ করে নিন। যেমন, প্রতিদিন ফোনে কথা বলা যাবে না, প্রতিদিন টেক্সট করা যাবে না। কয়েক মাসে একবার করে বাইরে দেখা করতে পারেন, কিন্তু দৈনিক যোগাযোগ মোটেই নয়।

সুত্র: টাইম

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close